শীতে চুল সুন্দর রাখুন খুব সহজেই,

শীতে চুল সুন্দর রাখুন খুব সহজেই,

শীতে চুল সুন্দর রাখুন
শীতে চুল সুন্দর রাখুন

শীত চলে এসেছে। আর সেইসাথে চলে এসেছে শীতের হাত থেকে চুলকে বাঁচানোর চিন্তাও। চলুন, দেখে নেওয়া যাক, এই শীতে চুল আরো সুন্দর রাখার সহজ কিছু উপায়। সুন্দর চুলের জন্য প্রথমেই খাওয়া-দাওয়ার দিকে নজর দিতে হবে।সবুজ সবজি ও ফলের রস চুলের জন্য অত্যন্ত কার্যকরী।স্বাস্থ্যবান, ঝলমলে চুলের জন্য দুধ ও ফ্রেশ দই খেতে পারেন।নারিকেল ও চুলকে স্বাস্থ্যবান করে তুলতে সহায়তা করে। ভেজা চুল কখনোই আঁচড়াবেন না।চুলের জট ছাড়ানোর জন্য বড় দাঁতের চিরুনি ব্যবহার করুন।কাঠের চিরুনি ব্যবহার করতে পারলে সবচেয়ে ভালো হয়।সপ্তাহে এক বার ডিপ কন্ডিশনিং ট্রিটমেন্ট ট্রাই করুন।চুলের যত্নে কড়া কেমিক্যাল ব্যবহার করবেন না। সপ্তাহে অন্তত ২-৩ বার উষ্ণ তেল দিয়ে মালিশ করতে পারেন। চুলের গোঁড়ার আর্দ্রতা বজায় রাখতে এর তুলনা হয় না। মালিশের জন্য নারিকেল তেল, আমন্ড অয়েল ব্যবহার করতে পারেন। আঙুলের ডগা দিয়ে চুলের গোঁড়ায় মালিশ করুন। শ্যাম্পু করার অন্তত ১ ঘণ্টা আগে তেল মালিশ করুন। অবসাদ বা ক্লান্তি চুলের রং ও স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকর। তাই স্ট্রেসমুক্ত থাকতে নানা ধরনের কৌশল যেমন, মেডিটেশন, মিউজিক থেরাপি কাজে লাগিয়ে দেখতে পারেন। ভেজা চুল হেয়ার ড্রায়ার দিয়ে শুকানোর চেষ্টা না করাই ভালো। এতে চুল রুক্ষ হয়ে যায়। তাছাড়া চুলের গোড়াও শুষ্ক হয়ে যেতে পারে। শীতে চুল সুন্দর রাখুন! শীত চলে এসেছে। আর সেইসাথে চলে এসেছে শীতের হাত থেকে চুলকে বাঁচানোর চিন্তাও। চলুন, দেখে নেওয়া যাক, এই শীতে চুল আরো সুন্দর রাখার সহজ কিছু উপায়। সুন্দর চুলের জন্য প্রথমেই খাওয়া-দাওয়ার দিকে নজর দিতে হবে। সবুজ সবজি ও ফলের রস চুলের জন্য অত্যন্ত কার্যকরী। স্বাস্থ্যবান, ঝলমলে চুলের জন্য দুধ ও ফ্রেশ দই খেতে পারেন। নারিকেলও চুলকে স্বাস্থ্যবান করে তুলতে সহায়তা করে। ভেজা চুল কখনোই আঁচড়াবেন না। চুলের জট ছাড়ানোর জন্য বড় দাঁতের চিরুনি ব্যবহার করুন। কাঠের চিরুনি ব্যবহার করতে পারলে সবচেয়ে ভালো হয়। সপ্তাহে একবার ডিপ কন্ডিশনিং ট্রিটমেন্ট ট্রাই করুন। চুলের যত্নে কড়া কেমিক্যাল ব্যবহার করবেন না। সপ্তাহে অন্তত ২-৩ বার উষ্ণ তেল দিয়ে মালিশ করতে পারেন। চুলের গোঁড়ার আর্দ্রতা বজায় রাখতে এর তুলনা হয় না। মালিশের জন্য নারিকেল তেল, আমন্ড অয়েল ব্যবহার করতে পারেন। আঙুলের ডগা দিয়ে চুলের গোঁড়ায় মালিশ করুন। শ্যাম্পু করার অন্তত ১ ঘণ্টা আগে তেল মালিশ করুন। অবসাদ বা ক্লান্তি চুলের রং ও স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকর। তাই স্ট্রেসমুক্ত থাকতে নানা ধরনের কৌশল যেমন, মেডিটেশন, মিউজিক থেরাপি কাজে লাগিয়ে দেখতে পারেন। ভেজা চুল হেয়ার ড্রায়ার দিয়ে শুকানোর চেষ্টা না করাই ভালো। এতে চুল রুক্ষ হয়ে যায়। তাছাড়া চুলের গোড়াও শুষ্ক হয়ে যেতে পারে।


No comments

Thanks for your comment.

Powered by Blogger.